৪৯ এ পা দিলেন মিনহাজুল আবেদিন নান্নু

Minhajul Abedin Nannu, Akram Khan and habibul Basharলিখেছেন

শিহাব আহসান খান

বাংলাদেশ স্বাধীন হবার ৬ বছর আগে ১৯৬৫ সালের আজকের এই দিনে(২৫শে সেপ্টেম্বর) চট্রগ্রামে জন্ম নিয়েছিলেন মিনহাজুল আবেদিন। ডাকনাম “নান্নু”। ছিলেন ডানহাতি মিডল-অরডার ব্যাটসম্যান। ডানহাতে টুকটাক অফব্রেকও করতেন। বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন প্রায় ১৩ বছর ধরে।

Also Read - বাঘিনীদের সামনে এবার শ্রীলঙ্কা

মাত্র ২০ বছর বয়সে ১৯৮৬ সালের ৩১শে মার্চ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অভিষেক ঘটে তার। সেটা ছিলো বাংলাদেশের প্রথম স্বীকৃত ওয়ানডে। অভিষেকে আলো ছড়াতে পারেননি। মাত্র ৬ রান করেই ওয়াসিম আকরামের শিকার হন তিনি। তাতে দমে যাননি আবাহনী-মোহামেডান এর হয়ে মাঠ কাপানো নান্নু। ক্যারিয়ারে মাত্র ২৭ টি ওয়ানডে খেললেউ জাতীয় দলের মিডল-অর্ডার এর এক ভরসার নামই ছিলেন তিনি। ২৭ টি ওয়ানডে খেলে ১৮.৮৭ গড়ে ২টি পঞ্চাশোরধ ইনিংস সহযোগে করেছেন ৪৫৩ রান। সেরা ইনিংস ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে করা ম্যাচজয়ী অপরাজিত ৬৮ রান। ঐ ম্যাচে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হন তিনি। অথচ ঐ বিশ্বকাপের দলে ডাক পেয়েছিলেন একেবারে শেষ সময়ে। ব্যাটিঙের পাশাপাশি বোলিঙে নিয়েছিলেন ১৩টি উইকেট।

১৯৯৯ সালেই আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শেষ হওয়ায় খেলা হয়নি টেস্ট ক্রিকেট। তবে ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটে নিজের জাত চিনিয়েছিলেন তিনি। ২৪টি ম্যাচ খেলে করেন ১৭০৯ রান। গড়টা ঈরষনীয়ই বটে। ৫১.৭৮!! খেলেছেন ৪টি ১০০+ ও ৯টি ৫০+ ইনিংস। সরবোচ্চ ২১০। সাথে পেয়েছেন ১২ টি উইকেটও।

১৯৯০ এর এশিয়া কাপে ২ ম্যাচের জন্যে দলকে নেতৃত্বও দিয়েছেন। তাছাড়া বেশ কিছুদিন গাজী আশরাফ হোসেন লিপুর ডেপুটিও ছিলেন। খেলা ছাড়ার পর বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। তার ভাই নুরুল আবেদীন (নোবেল) ও বাংলাদেশ এর প্রতিনিধিত্ব করেছেন। জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ৪টি ওয়ানডে।

৪৯ এ পা দেওয়া নান্নুকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে শতকের দেখা না পেলেউ তিনি শতবরষী হোন এই কামনা করি।